১ লক্ষ টাকার আশেপাশে ৫টি মোটরসাইকেলঃ সাধ্যের মধ্যে শখের বাইক

১ লক্ষ টাকার আশেপাশে ৫টি মোটরসাইকেলঃ সাধ্যের মধ্যে শখের বাইক

মোটরসাইকেল আমাদের দেশে যানবাহন হিসেবে অনেকেরই পছন্দের। বর্তমানে দেশের বাজার ছেয়ে আছে জনপ্রিয় মোটরসাইকেল প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানগুলোর নানান ব্র্যান্ডের মোটরসাইকেলে যার ফলে ক্রেতাদের তাদের জন্য সেরা বাইকটি বেছে নেওয়ার সময় কিছু ক্ষেত্রে চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হয়।

একজন মোটরসাইকেল প্রেমী হিসেবে আপনি কি ১ লক্ষ টাকার মধ্যে একটি বাইক খুঁজছেন? বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় মার্কেটপ্লেস হওয়ার দরুন, আমরা বুঝতে পারি কীভাবে আপনার বাজেট সঠিক বাইকটি বাছাই করার সময় কীরূপ ভূমিকা পালন করে থাকে।

আর এজন্যেই আজকের লেখায় আমরা ১ লক্ষ টাকার আশেপাশে পাওয়া যেতে পারে এমন ৫টি মোটরসাইকেলের তালিকা এবং বর্তমান বাজারে মোটরসাইকেলের দরদাম নিয়ে আলোচনা করেছি। আপনার পছন্দের বাইক মডেলটির ব্যাপারে বিস্তারিত জানতে আপনি Bikroy.com-এ ফিল্টার অপশন ব্যবহার করার মাধ্যমে সার্চ করতে পারেন।

১ লক্ষ টাকার আশেপাশে ৫টি মোটরসাইকেল

আমাদের দেশের মোটরসাইকেল মার্কেট বেশ সু-পরিচিত এবং সারা দেশে সেকেন্ড-হ্যান্ড মোটরসাইকেলের কেনা-বেচা এই মার্কেটের একটি বড় অংশ জুড়ে রয়েছে। এখানে ১ লক্ষ টাকার মধ্যে বাংলাদেশের সেরা ৫টি মোটরসাইকেলের একটি কিউরেটেড তালিকা তুলে ধরা হয়েছে। বাইক কেনার ব্যাপারে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে লেখাটি শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

মডেল মূল্য (টাকায়) 
হিরো স্প্লেন্ডার প্লাস আইবিএস ১,০৮,০০০
বাজাজ প্লাটিনা ইএস ১,০৩,০০০
সুজুকি হায়াতে ১,০৮,০০০
টিভিএস মেট্রো প্লাস (ড্রাম) ১,০৫,৫০০
হোন্ডা ড্রিম ১১০ ১,০৩,৯০০
১ লক্ষ টাকার মধ্যে ৫টি মোটরসাইকেল

১. হিরো স্প্লেন্ডার প্লাস আইবিএস

হিরো স্প্লেন্ডার প্লাস আইবিএস
হিরো স্প্লেন্ডার প্লাস আইবিএস

সিটি রাইডের জন্য একটি পারফেক্ট কমিউটার খুঁজছেন? হিরো স্প্লেন্ডার প্লাস আইবিএস মোটরসাইকেলটি তার স্টাইলিশ লুক এবং আইবিএস (ইন্টিগ্রেটেড ব্রেকিং সিস্টেম) ফিচারের মাধ্যমে দেশের তরুণদের মনোযোগ কাড়তে সক্ষম হয়েছে। বর্তমানে আরও কিছু উন্নত বৈশিষ্ট্য সহ হিরো স্প্লেন্ডার-এর বিভিন্ন ভ্যারিয়েন্ট বাংলাদেশের বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। ক্রেতারা এই প্রাইজ গ্রুপে মোটরসাইকেলটির উল্লেখিত ফিচার ব্যবহার করে সন্তুষ্ট হবেন বলে আমাদের ধারণা।

বাইকের ধরণ কমিউটার
ইঞ্জিন সিসি  ১০০ সিসি
সর্ব্বোচ্চ ক্ষমতা ৮.২ বিএইচপি @ ৮০০০ আরপিএম
সর্বোচ্চ টর্ক ৮.০৫ এনএম @ ৫০০০ আরপিএম
গিয়ার সংখ্যা
ওজন ১১২ কেজি
ফুয়েল ট্যাংক ধারণ ক্ষমতা ১০.৫ লিটার
হিরো স্প্লেন্ডার প্লাস আইবিএস-এর বৈশিষ্ট্য

হিরো স্প্লেন্ডার প্লাস আইবিএস-এর মূল্যঃ বর্তমানে বাংলাদেশে হিরো স্প্লেন্ডার প্লাস আইবিএস পাওয়া যাবে ১,০৮,০০০ টাকায়।

২. বাজাজ প্লাটিনা ইএস

বাজাজ প্লাটিনা ইএস
বাজাজ প্লাটিনা ইএস

প্লাটিনা বাংলাদেশের মোটরসাইকেল মার্কেটে একটি পরিচিত নাম। এছাড়াও এটি বাংলাদেশের কমিউটার বিভাগে সর্বাধিক বিক্রিত বাজাজ মোটরসাইকেল। বাজাজ প্লাটিনা পুরোদস্তুর একটি কমিউটার মোটরসাইকেল এবং বাজারে বিভিন্ন রঙের ভ্যারিয়েন্টে এই মোটরসাইকেলটি উপলব্ধ।

বাইকের ধরণ কমিউটার
ইঞ্জিন সিসি  ১০২ সিসি
সর্ব্বোচ্চ ক্ষমতা ৮.১ বিএইচপি @ ৭৫০০ আরপিএম
সর্বোচ্চ টর্ক ৮.০৬ এনএম @ ৫০০০ আরপিএম
গিয়ার সংখ্যা
ওজন ১০৮ কেজি
ফুয়েল ট্যাংক ধারণ ক্ষমতা ১১ লিটার
বাজাজ প্লাটিনা ইএস-এর বৈশিষ্ট্য

বাজাজ প্লাটিনা ইএস-এর মূল্যঃ বর্তমানে বাংলাদেশে বাজাজ প্লাটিনা ইএস পাওয়া যাবে ১,০৩,০০০ টাকায়।

৩. সুজুকি হায়াতে

সুজুকি হায়াতে
সুজুকি হায়াতে

অটোমোবাইল ইন্ডাস্ট্রিতে জাপানি যানবাহনের আলাদা চাহিদা ও ভোক্তাগ্রুপ রয়েছে। হায়াতে, সুজুকির বাজারে আনা প্রথম কমিউটার সিরিজ। এটি সুজুকির সবচেয়ে আকর্ষণীয় লুকের বাইকগুলোর একটি। হায়াতে মোটরসাইকেলটিতে একটি এনালগ ড্যাশবোর্ড রয়েছে এবং এতে দেওয়া হয়েছে টিউবলেস টায়ার যা আপনার যাত্রাকে করবে আরও আনন্দদায়ক ও জ্বালানি-সাশ্রয়ী।

বাইকের ধরণ কমিউটার
ইঞ্জিন সিসি  ১১০ সিসি
সর্ব্বোচ্চ ক্ষমতা ৮.২ বিএইচপি @ ৭৫০০ আরপিএম
সর্বোচ্চ টর্ক ৮.৮ এনএম @ ৫৫০০ আরপিএম
গিয়ার সংখ্যা
ওজন ১১৪ কেজি
ফুয়েল ট্যাংক ধারণ ক্ষমতা ১০.৫ লিটার
সুজুকি হায়াতে-এর বৈশিষ্ট্য

সুজুকি হায়াতে-এর মূল্যঃ বর্তমানে বাংলাদেশে সুজুকি হায়াতে পাওয়া যাবে ১,০৮,০০০ টাকায়।

৪. টিভিএস মেট্রো প্লাস (ড্রাম)

টিভিএস মেট্রো প্লাস (ড্রাম)
টিভিএস মেট্রো প্লাস (ড্রাম)

টিভিএস একটি জনপ্রিয় ভারতীয় মোটরসাইকেল নির্মাতা প্রতিষ্ঠান যারা বাজাজের সাথে বাংলাদেশের মোটরসাইকেল বাজারে আধিপত্য বিস্তার করে আছে। বর্তমানে তারা আমাদের দেশেই মোটরসাইকেল উৎপাদন শুরু করার পাশাপাশি তাদের কমিউটার সেগমেন্টে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। বাজারে টিভিএস মেট্রো কেএস এবং টিভিএস মেট্রো ইএস নামে দুটি ভিন্ন ধরণের টিভিএস মেট্রো পাওয়া যায়। যেখানে ইএস-এর অর্থ ‘ইলেকট্রিক স্টার্ট’ আর কেএস-এর অর্থ ‘কিক স্টার্ট’।

বাইকের ধরণ কমিউটার
ইঞ্জিন সিসি  ১১০ সিসি
সর্ব্বোচ্চ ক্ষমতা ৮.৩ বিএইচপি @ ৭৫০০ আরপিএম
সর্বোচ্চ টর্ক ৮.৭ এনএম @ ৫০০০ আরপিএম
গিয়ার সংখ্যা
ওজন ১০৯ কেজি
ফুয়েল ট্যাংক ধারণ ক্ষমতা ১০ লিটার
টিভিএস মেট্রো প্লাস (ড্রাম)-এর বৈশিষ্ট্য

টিভিএস মেট্রো প্লাস (ড্রাম)-এর মূল্যঃ বর্তমানে বাংলাদেশে টিভিএস মেট্রো প্লাস (ড্রাম) পাওয়া যাবে ১,০৫,৫০০ টাকায়।

৫. হোন্ডা ড্রিম ১১০

হোন্ডা ড্রিম ১১০
হোন্ডা ড্রিম ১১০

হোন্ডা সারা বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় ও সমাদৃত একটি মোটরসাইকেল ব্র্যান্ড। তারা তাদের বৈচিত্র্যময় মোটরসাইকেল সিরিজগুলোর জন্যও সুপরিচিত। যেমন হোন্ডা সিবিআর সিরিজ সবার ক্ষেত্রেই বহুল আকাঙ্খিত একটি বাইক সেগমেন্ট তেমনি হোন্ডা তার কমিউটিং সেগমেন্টের জন্যও সুপরিচিত। সাশ্রয়ী জ্বালানি সমৃদ্ধ হোন্ডা ড্রিম ১১০ দেখতেও বেশ আকর্ষণীয়।

বাইকের ধরণ কমিউটার
ইঞ্জিন সিসি  ১১০ সিসি
সর্ব্বোচ্চ ক্ষমতা ৮.২৫ বিএইচপি @ ৭৫০০ আরপিএম
সর্বোচ্চ টর্ক ৯.০৯ এনএম @ ৫৫০০ আরপিএম
গিয়ার সংখ্যা
ওজন ১০৭ কেজি
ফুয়েল ট্যাংক ধারণ ক্ষমতা ৮ লিটার
হোন্ডা ড্রিম ১১০-এর বৈশিষ্ট্য

হোন্ডা ড্রিম ১১০-এর মূল্যঃ বর্তমানে বাংলাদেশে হোন্ডা ড্রিম ১১০ পাওয়া যাবে ১,০৩,৯০০ টাকায়।

শেষকথা

এন্ট্রি-লেভেল বাইক সেগমেন্ট থেকে যদিও সেরা পারফরম্যান্স আশা করা যায় না, তবে উপরে উল্লিখিত বাইকগুলো প্রতিদিনের ব্যবহারে সিটি রাইডে জ্বালানি সাশ্রয় এবং ব্যবহারকারীর পর্যাপ্ত আরাম নিশ্চিত করবে।

সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে আমরা আপনার পছন্দের আসন্ন বাইকের মডেল এবং আপনি যে বাজেট খরচ করার কথা ভাবছেন সে সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকি।

বাংলাদেশি মোটরসাইকেলের মার্কেট, দাম, ট্রেন্ড এবং খবর সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে Bikroy.com-এর সাথে থাকুন।

হ্যাপি শপিং!



3 comments

  1. জগদীশ, খাজলাল,কাহালু,বগুড়া। ০১৮৪৬০৬১১২৩ says:

    আমি একটা হিরো স্পালেন্ডার নেবো দাম কত পরবে। হাতে পাবার পরে টাকা পরিশোধ করতে চাই

  2. আমার উচ্চতা 5’2″ এক লাখ টাকার মধ্যে ছিট একটু লো, পাশাপাশি আরামদায়ক ও জ্বালানি সাশ্রয়ী এমন একটি মটর সাইকেল কোনটি হতে পারে?

Leave a comment

Your email address will not be published.