স্কুটি নাকি ই -বাইক কোনটি রক্ষণাবেক্ষণ করা বেশি সহজ?

23 Aug, 2023   
স্কুটি নাকি ই -বাইক কোনটি রক্ষণাবেক্ষণ করা বেশি সহজ?

স্কুটি নাকি ই-বাইক? কোনটা আপনার পছন্দ? শহরের এই গতিশীলতার মাঝে স্কুটি ও ই-বাইকের জনপ্রিয়তা দিন দিন বাড়ছে। আপনিও হয়তো ভাবছেন, একটা স্কুটি বা ই-বাইক হলে মন্দ হয়না। কিন্তু আমাদের পরামর্শ থাকবে আপনি আগে জেনে নিন স্কুটি ও ই-বাইক রক্ষণাবেক্ষণকৌশল-গুলো। এতে আপনার জন্য অনেক সহজ হবে সিদ্ধান্ত নিতে, ‘স্কুটি নাকি ই-বাইক কোনটি আপনি বেছে নিবেন।

আপনি যেকোনো বাইক কেনার সময় একটু চিন্তায় পড়ে যান কীভাবে এর যত্ন নিবেন, রক্ষণাবেক্ষণ কতোটুকু ব্যয়বহুল হবে ইত্যাদি। আর যেহেতু স্কুটি ও ই-বাইক – এর দাম বিচার করলে বাইকগুলো বেশ ব্যয়বহুল, আপনি নিশ্চয়ই চাইবেন না আপনার অবহেলার কারনে বাইকের কোনো ক্ষতি হোক। তাছাড়া স্কুটি ও ই-বাইকের মিল-অমিল তো আছেই। একজন আদর্শ বাইকার হিসেবে আপনার উচিত হবে স্কুটি ও ই-বাইকের বিভিন্ন দিক জেনে নেওয়া। এমনই একটা গুরুত্বপূর্ণ দিক হলো হলো –  স্কুটি ও ই-বাইক রক্ষণাবেক্ষণ। তাই আসুন স্কুটি ও ই-বাইক রক্ষণাবেক্ষণ কৌশল-গুলো জেনে নিন।

ক্লিনিং 

  • ই-বাইক ক্লিনিং 

আপনি যদি ই-বাইক থেকে সর্বোচ্চ সুবিধা পেতে চান তবে নিয়মিত আপনার ই-বাইক ধোয়া এবং এটিকে ভালোভাবে রক্ষণাবেক্ষণ করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আপনার ই-বাইকটি যখনই নোংরা হবে তখনই এটি ধুয়ে নিবেন। রাস্তায় চালানোর পর নিয়মিত বাইকটিকে মুছুন, প্রতি মাসে চেইনটি কমিয়ে দিন এবং লুবিং করুন। তবে, আপনি যদি বৃষ্টির সময় ই-বাইক ব্যবহার করেন, তাহলে বাইকটিকে ঘন ঘন পরিষ্কার করুন। দীর্ঘ সময়ের ধরে আপনার বাইকে ময়লা বা কাদা রেখে দিলে, বাইকের মূল উপাদানগুলি দ্রুত নষ্ট হয়ে যেতে পারে। 

  • স্কুটি ক্লিনিং 

ধূলিকণা এবং ধ্বংসাবশেষ আপনার স্কুটি-র সার্কিট্রির নক এবং ক্র্যানিতে প্রবেশ করতে পারে এবং এটিকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। এই ঝামেলা থেকে বাঁচতে, নিশ্চিত করুন যে আপনি সপ্তাহে একবার আপনার স্কুটি-টি খুব ভালোভাবে পরিষ্কার করছেন কিনা। যখনই আপনি আপনার স্কুটারের উপরের অংশ ধুয়ে ফেলার জন্য পানি ব্যবহার করবেন, মনে করে অবশ্যই ইগনিশন সুইচ, সাইলেন্সার এবং H.T. কুণ্ডলী কোনো প্লাস্টিকের শীট দিয়ে ঢেকে দিবেন। আপনার স্কুটি পরিষ্কার করার পরে, এটিকে সরাসরি সূর্যের আলো থেকে দূরে এবং ছায়াময় জায়গায় পার্ক করবেন, নাহলে রঙ বিবর্ণ হয়ে যেতে পারে।

টায়ার

  • ই-বাইকের টায়ার

আপনাকে নিয়মিত আপনার ই-বাইকের টায়ারের চাপও পরীক্ষা করা উচিত। কম স্ফীত টায়ারগুলি কেবল বিপজ্জনকই নয়, টায়ারগুলো বাইকের শক্তি এবং কার্যক্ষমতাও হ্রাস করে দেয়, যার ফলে আপনি ব্যাটারির চার্জ কম পাবেন। একইভাবে, টায়ারে খুব বেশি চাপ থাকলে, আরামদায়ক রাইডিং-এ বাঁধার সৃষ্টি হয়, বিশেষ করে যদি আপনি অফ-রোডে বাইক চালান।

  • স্কুটির টায়ার

স্কুটি কোথাও পার্ক করার সময় এবং চালানোর আগে, আপনি নিশ্চিত হবেন যে এর টায়ারগুলি সঠিকভাবে স্ফীত আছে এবং টায়ারের নিচে কোনো স্ক্র্যাচ বা ছোটখাটো কাটা নেই। প্রস্তুতকারক অর্থাৎ কোম্পানি দ্বারা সুপারিশকৃত টায়ারের চাপ কঠোরভাবে বজায় রাখার চেষ্টা করবেন। এরপরও যদি দেখেন চাকার ভারসাম্য ঠিক নেই, তবে আপনার স্কুটারটিকে অবিলম্বে ভালো সার্ভিস সেন্টারে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছি।

ব্যাটারি

  • ই-বাইকের ব্যাটারি

আপনি যদি নিয়মিত আপনার ব্যাটারি সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেন, তাহলে হালকা ভেজা কাপড় দিয়ে পরিষ্কার করে নিন এবং একটি শুকনো ব্রাশ দিয়ে জয়েন্টগুলো থেকে জমে থাকা ময়লা বের করে নিন। শুষ্ক স্থানে ঘরের তাপমাত্রায় ব্যাটারি চার্জ করুন।  ব্যাটারির কার্যক্ষমতা আরও বাড়াতে, ব্যাটারি সম্পূর্ণ চার্জ হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। এক্ষেত্রে তাড়াহুড়ো করা যাবেনা।

  • স্কুটির ব্যাটারি

আপনার স্কুটির ব্যাটারিকে “হার্ট” হিসাবে ভাবুন, যা ছাড়া ইঞ্জিন চালু হবেনা। তাই খুব ভালোভাবে স্কুটির ব্যাটারির যত্ন নিতে হবে, রক্ষণাবেক্ষণে কোনো কমতি রাখবেন না। আপনি যদি ব্যাটারিতে কোনো ক্ষয় বা ফুটো লক্ষ্য করেন, য্ত তাড়াতাড়ি সম্ভব মেরামত বা প্রতিস্থাপনের জন্য পাঠান। মনে রাখবেন, যদি খুব লং-টাইমের জন্য স্কুটি অব্যবহৃত রেখে দেন, তাহলে ব্যাটারি তার স্বাভাবিক আয়ুষ্কালের চেয়ে অনেক দ্রুত ডিসচার্জ হতে থাকবে। 

সার্ভিসিং

  • ই-বাইক সার্ভিসিং

চেষ্টা করবেন যতোটা সম্ভব নিজের ই-বাইককে সেইফ রাখার। কিন্তু কখনো কোনো ত্রুটি থাকলে ডিলারশিপে/সার্ভিসিং সেন্টারে যান। কখনও নিজেই কোনো পার্টস আলাদা করার চেষ্টা করবেন না, বা মোটর বা ব্যাটারি নিজে ঠিক করতে যাবেন না। এতে হিতে বিপরীত হতে পারে।

  • স্কুটি সার্ভিসিং

আপনার স্কুটি নিয়মিত সার্ভিসিং করুন। এটা সবচেয়ে ভালো হয় যদি আপনি অনুমোদিত ডিলারের কাছ থেকে স্কুটি নিয়ে থাকেন। যদি তা না হয়, তবে শুধুমাত্র একটা বিশ্বস্ত তৃতীয় পক্ষের কাছে নিয়ে যাবেন। স্পার্ক প্লাগকে পরিষ্কার রাখার জন্য বার বার সার্ভিসিং করুন। আপনার স্কুটি যদি ইতিমধ্যে ১০০০ কিলোমিটারের বেশি কভার করে থাকে, তাহলে অবিলম্বে একটা মাস্টার সার্ভিস দিন।

ইঞ্জিন ওয়েল ও লুব্রিকেন্টস

  • ই-বাইকের লুব্রিকেন্টস

ইলেক্ট্রনিক বাইকের চেইনগুলি সাইকেলের চেইনের চেয়ে বেশি ঘন ঘন তৈলাক্তকরণ/লুব্রিকেশনের প্রয়োজন পড়ে। নিয়মিতভাবে আপনার চেইনে একটা গুণগতমানের লুব্রিকেন্ট ব্যবহার করলে আপনি ই-বাইক থেকে ভালো পারফরম্যান্সের ব্যাপারে নিশ্চিত থাকতে পারবেন। প্রতি রাইডের পরে এবং অবশ্যই বাইকটি ধোয়া ও বাইক শুকানোর পরে লুব্রিকেন্ট ব্যবহার করবেন। 

ই-বাইকে লুব্রিকেন্ট প্রয়োগ করা যতোটা সহজ মনে হয়, ততোটা সহজ নয়। আপনি বেশিরভাগ ইবাইকে ব্যাক-প্যাডেল করতে পারবেন না, তাই বাইকটিকে একটি ওয়ার্কস্ট্যান্ডে রাখতে হবে (অথবা পিছনের চাকাটি মাটি থেকে ধরে রাখার জন্য আপনার বন্ধুর সাহায্য নিন), এতে আপনি প্যাডেলগুলি ঘুরিয়ে দিতে পারবেন, যাতে চেইনের উপর সমানভাবে লুব ড্রপ হয়।

  • স্কুটির ইঞ্জিন ওয়েল

আপনার স্কুটারের স্মুথ পারফরম্যান্সের জন্য ইঞ্জিন তেল গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষয়। নিয়মিত আপনার ইঞ্জিন তেলের মাত্রা পরীক্ষা করবেন। নোংরা তেল ব্যবহার করে আপনার প্রিয় স্কুটি নষ্ট করতে যাবেন না। মনে রাখবেন, আপনার স্কুটিতে ভালো/ফ্রেশ তেল ব্যবহার না করলে কার্বন জমা হতে পারে যা ইঞ্জিনের অভ্যন্তরীণ গতিবিধিতে মারাত্নক সমস্যার তৈরি করবে।

পরিশেষে 

স্কুটি ও ই-বাইকের মিল-অমিল এবং স্কুটি ও ই-বাইক রক্ষণাবেক্ষণ কৌশল বিবেচনা করলে বলা যায়, স্কুটির কম রক্ষণাবেক্ষণের প্রয়োজন পড়ে। সাধারনত, স্কুটিতে খুব কম মুভিং পার্টস ব্যবহার করা হয়, যা রক্ষণাবেক্ষণ তুলনামূলক সহজ। ই-বাইকের এমন অনেক পার্টস আছে যা ভেঙ্গে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এছাড়াও স্কুটির খুচরা যন্ত্রাংশগুলোর দাম, ই-বাইকের পার্টসগুলো থেকে কম। 

ব্যাটারির দিক দেখলে বলতেই হবে, ই-বাইকের ব্যাটারির ধারণক্ষমতা, স্কুটির ব্যাটারির চেয়ে অনেক ভালো। কিন্তু কখনো সমস্যা দেখা দিলে এবং ব্যাটারি চেইঞ্জ করার প্রয়োজন পড়লে, দেখবেন স্কুটির ব্যাটারি ই-বাইকের ব্যাটারির চেয়ে অনেক সস্তা। 

স্কুটি নাকি ই-বাইক এই নিয়ে দ্বন্দ্ব শেষ হওয়ার নয়। নিজের পছন্দের সাথে মিল রেখে স্কুটি ও ই-বাইক – এর দাম, স্কুটি ও ই-বাইক রক্ষণাবেক্ষণ কৌশল, স্কুটি ও ই-বাইকের মিল-অমিল ইত্যাদি দিক বিবেচনা করে নিয়ে নিতে পারেন প্রিয় স্কুটি কিংবা ই-বাইক।

স্কুটি ও ই-বাইক – এর দাম-এর মধ্যেও আছে বেশ পার্থক্য। পড়ে নিতে পারেন আমাদের স্কুটি নাকি ই-বাইক? কোনটি ভালো অপশন? – এই Advice blog-টি, আশা করি, স্কুটি ও ই-বাইকের মিল-অমিল সম্পর্কে ক্লিয়ার ধারণা পাবেন।

When you buy any bike you worry a bit about how to take care of it, how much maintenance will cost etc. And since bikes are quite expensive judging by the price of scooty and e-bike, you definitely don’t want any damage to the bike due to your negligence. So let’s know the scooty and e-bike maintenance techniques.

  • Cleaning:

Wash your E-bike whenever it gets dirty. Wipe down the bike regularly after riding it on the road, shorten and lube the chain every month. Whenever you use water to wash the top part of your Scooter, remember the ignition switch, silencer and H.T. Cover the coil with a plastic sheet. After cleaning your scooter, park it away from direct sunlight and in a shaded area, otherwise the colour may fade.

  • Tyre:

You should also check the tire pressure of your e-bike regularly. Under-inflated tires are not only dangerous, but also reduce the power and performance of the bike. While parking the scooter anywhere and before riding it, you should make sure that its tires are properly inflated and there are no scratches or minor cuts under the tyre.

  • Battery:

If you regularly disconnect your e-bike‘s battery, clean it with a lightly damp cloth and remove any accumulated dirt from the joints with a dry brush. If you notice any corrosion or leakage in the scooter battery, send it for repair or replacement as soon as possible.

  • Engine Oil and Lubricants:

By regularly using a quality lubricant on your E-bike chain, you can ensure better performance from your e-bike. Not using good/fresh oil in your scooty can lead to carbon deposits which will cause serious problems in the internal movement of the engine.

Both need maintenance, but the Scooty requires less maintenance than the E-bike. Now it depends on your choice, what you will choose based on your personal preference.

স্কুটি ও ই-বাইক রক্ষণাবেক্ষণ নিয়ে সচরাচর জিজ্ঞাসা

ই-বাইক রক্ষণাবেক্ষণের মৌলিক বিষয়গুলি কি কি?

ই-বাইক রক্ষণাবেক্ষণের মৌলিক বিষয়গুলির একটি সংক্ষিপ্ত বিবরণ দেওয়া হল:

  • আপনার বাইক পরিষ্কার রাখুন, ড্রাইভট্রেন ভালোভাবে লুব্রিকেটেড এবং টায়ারগুলোতে সঠিক পরিমাণ হাওয়া দিন।
  • নিয়মিত আলগা বোল্ট, স্পোক এবং ভাঙা অংশ পরীক্ষা করুন
  • ব্যাটারিটি আংশিকভাবে চার্জ করে রাখুন এবং এটি একটি শীতল, শুকনো জায়গায় সংরক্ষণ করুন
  • ফ্ল্যাট ব্যাটারি দিয়ে বাইক সংরক্ষণ করা থেকে এড়িয়ে চলুন
  • শুধুমাত্র সঠিক চার্জার দিয়ে ব্যাটারি চার্জ করুন
  • সফ্টওয়্যার আপডেটের জন্য নিয়মিত পরীক্ষা করুন

স্কুটি নাকি ই-বাইক? কোনটি বেস্ট অপশন?

যেহেতু ব্যাপার অনেকটাই নিজের পছন্দ ও আনুষাঙ্গিক বিভিন্ন বিষয়ের উপর নির্ভর করে, তাই সব দিক জেনে নেওয়া জরুরি। এতে ডিসিশন নিতে সুবিধা হবে। পড়ে নিন BikesGuide-এর স্কুটি নাকি ই-বাইক? কোনটি ভালো অপশন? – এই Advice blog-টি।

স্কুটি ও ই-বাইকের মধ্যে কোনটির ব্যাটারি বেশি ভালো?

ই-বাইকের ব্যাটারির ধারণক্ষমতা, স্কুটির ব্যাটারির চেয়ে অনেক ভালো। কিন্তু কখনো সমস্যা দেখা দিলে এবং ব্যাটারি চেইঞ্জ করার প্রয়োজন পড়লে, দেখবেন স্কুটির ব্যাটারি ই-বাইকের ব্যাটারির চেয়ে অনেক সস্তা। ব্যাটারিচালিত এসব বাহনের সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো এগুলোর গতি, ইঞ্জিন চালিত বাহনের চেয়ে কম হয়।

স্কুটি ও ই-বাইকের মধ্যে কোনটি বেশি এনভায়রনমেন্ট ফ্রেন্ডলি?

জ্বালানি চালিত বাইকের তুলনায় বৈদ্যুতিক বাইক এবং স্কুটার দুটোই পরিবেশ বান্ধব। এসব বাইক কালো ধোঁয়া বা কার্বন নিঃসরণ করে না, শব্দ দূষণ করে না, তাই পরিবেশের কোনো ক্ষতি হয় না। 

Similar Advices



Leave a comment

Please rate

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Motorbikes for Salebikroy logo
Yamaha FZS V2 Full Fresh 2023 for Sale

Yamaha FZS V2 Full Fresh 2023

4,995 km
MEMBER
Tk 225,000
5 minutes ago
TVS Metro Plus Black Blue 2021 for Sale

TVS Metro Plus Black Blue 2021

15,213 km
verified MEMBER
Tk 85,000
2 hours ago
Mahindra Centuro good condition 2016 for Sale

Mahindra Centuro good condition 2016

23,565 km
verified MEMBER
verified
Tk 55,000
6 hours ago
TVS Stryker on test fill rede 2020 for Sale

TVS Stryker on test fill rede 2020

19,895 km
verified MEMBER
verified
Tk 72,999
6 hours ago
Bajaj Platina h gayer Fress all 2022 for Sale

Bajaj Platina h gayer Fress all 2022

14,256 km
verified MEMBER
verified
Tk 85,000
6 hours ago
Auto Parts for salebikroy logo
+ Post an ad on Bikroy