Honda CB Trigger রিভিউ দাম ও ফিচারসমূহ

Honda CB Trigger  |  13 Jan, 2023
Honda CB Trigger রিভিউ দাম ও ফিচারসমূহ

হোন্ডা মোটরসাইকেল ও স্কুটার ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানির অন্যতম দারুন একটি স্পোর্টস কমিউটার বাইকের মিশ্রণ হচ্ছে হোন্ডা সিবি ট্রিগার রিভিউ বাইকটি। এই কোম্পানির আশা অনুযায়ী পূর্ববর্তী পণ্য ইউনিকর্ণ ড্যাজলার মোটরবাইকের বাজারে তেমন ভাবে মাতিয়ে তুলতে পারেনি। তাই কোম্পানিটি সিদ্ধান্ত নেয় ইউনিকর্ণ ড্যাজলার বাইকটিকে নতুন করে তৈরি করার। অনেক দিন ধরে ড্যাজলার বাইকটিকে আপগ্রেড করার পর সেটার নতুন নাম দেয়া হয় Honda CB Trigger রিভিউ, আর নির্দিষ্ট সময়ে তা লঞ্চ করে। যদিও বর্তমানে বাইকটি বাজারজাত করা বন্ধ হয়ে গেছে, তবুও আমাদের দেশে এখন হোন্ডা ট্রিগার ফিচারে ভরা বাইকটি বিভিন্ন গ্রাহকদের হাতে হাতে দেখা যায়, এবং সেগুলো ব্যবহৃত পণ্যের সাথে বিক্রিও হয়।

আজ আমরা দেখবো এই হোন্ডা কম্পানি এই হোন্ডা সিবি ট্রিগার বাইকটি নিয়ে সবসময় এত মাতামাতি কেনো করেছে। সেই সাথে জানবো হোন্ডা ট্রিগার দাম এবং বিস্তারিত ট্রিগার রিভিউ

Honda CB Trigger রিভিউ – ইঞ্জিন

নতুন সিবি ট্রিগার রিভিউ অনুযায়ী এতে রয়েছে পূর্ববর্তী ইউনিকর্ন ড্যাজলারের ১৫০ সিসি শক্তিশালী ইঞ্জিন । ১৪৯.১ সিসি ডিসপ্লেসমেন্টের এই ইঞ্জিনটি একটি ৪ স্ট্রোক, সিঙ্গেল সিলিন্ডার, ওভার-হেড ক্যাম, এয়ার কুলিং, ২ ভালভ, সিঙ্গেল স্পার্ক ইঞ্জিন। এর সিলিন্ডারের বোর হচ্ছে ৫৭.৮ মিমি, যার দরুণ ডিসপ্লেসমেন্টের মান ১৪৯.১ হয়েছে।

ইঞ্জিনটিতে কমপ্রেশন রেশিও রাখা হয়েছে ৯.৫ঃ১; যার ফলে বাংলাদেশে ব্যবহারযোগ্য গ্যাসোলিনের মান বিবেচনায় পিস্টন তথা ইঞ্জিন দীর্ঘদিন পর্যন্ত ভালো থাকবে।

একটি বিশেষ কার্বুরেটরের সাহায্যে সিবি ট্রিগারের ইঞ্জিনে জ্বালানী সরবরাহ করা হয়। হোন্ডা তাদের স্পেসিফিকেশনে আলাদাভাবে কোনো মডেলের নাম উল্লেখ করেনি। তাই আমরা ধরেই নিতে পারি যে, হয় তারা নতুন কোনো কার্বুরেটর ডিজাইন করেছে, নতুবা আরো ভালো পারফর্ম্যান্সের জন্য ড্যাজলারের মডেলটিকেই টিউনিং করে নিয়েছে। এছাড়াও ইঞ্জিনের সুস্থতার জন্য এয়ার কুলিং সিস্টেম হিসেবে একটি আঠালো কাগজের ফিল্টার ব্যবহার করা হয়।

এছাড়াও হোন্ডা ট্রিগার রিভিউতে ইঞ্জিনের লুব্রিকেশন সিস্টেম সম্পর্কে কোনো স্পষ্ট ধারণা পাওয়া যায়নি। এই সবকিছু মিলিয়ে ইঞ্জিনটি থেকে ১৪ বিএইচপি @৮৫০০ আরপিএম সর্বোচ্চ পাওয়ার এবং ১২.৫ এনএম @৬৫০০ আরপিএম সর্বোচ্চ টর্ক পাওয়া সম্ভব।

এছাড়াও ইঞ্জিনটির জ্বালানী ট্যাংকের ধারণক্ষমতা ১২ লিটার। বাইকটির ওয়েট ওজন হচ্ছে ১৩৫ কেজি; যার দরুন এর ওজন-সাপেক্ষে পাওয়ার রেশিও প্রতি ১০০ কেজিতে ৪.৭ এইচপি। সবশেষে হোন্ডা ট্রিগার ফিচার হিসেবে ইঞ্জিনটিতে বেসিক কিক স্টার্টের পাশাপাশি রাখা হয়েছে ইলেকট্রিক স্টার্টের সুবিধা। 

Honda CB Trigger রিভিউ – ট্রান্সমিশন এবং পারফর্ম্যান্স

হোন্ডা সিবি ট্রিগার রিভিউতে উল্লেখযোগ্য ব্যাপার হচ্ছে এর ৫ স্পিডের অনবরত মেশ ট্রান্সমিশন; যার মধ্যে ১টি ডাউন ও ৪টি আপ গিয়ারের সমন্বয় রয়েছে। এছাড়াও এর ট্রান্সমিশনে রয়েছে একটি ওয়েট মাল্টিপ্লেট ক্লাচ। Honda CB Trigger রিভিউতে এর গিয়ারের রেশিও সম্পর্কে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

সিবি ট্রিগার বাইকটি মাত্র ৬ সেকেন্ডে ০ থেকে ৬০ কিমি প্রতি ঘন্টা গতি তুলতে সক্ষম এবং হোন্ডার দাবি, ট্রিগারের মাইলেজ গড়ে প্রতি লিটারে ৪৫-৫৫ কিমি এর মত। সেই হিসেবে বাইকটির পারফর্ম্যান্স বেশ ভালোই মনে হচ্ছে।

Honda CB Trigger রিভিউ – ডিজাইন ও আউটলুক

একটু ভিন্ন অ্যাংগেল থেকে দেখলে সিবি ট্রিগার বাইকটিকে অনেক চেনা চেনা লাগে। যেহেতু এই বাইকটি হোন্ডার বিখ্যাত ড্যাজলার বাইকের একটি আপগ্রেড করা ভার্সন, তাই একে দেখতে অনেকটা ড্যাজলারের মতই। কিন্তু সাইড ভিউতে বাইকটির বডিতে কিছু নতুন ডিজাইনের কাজ দেখা যায়।

হয়ত শুনতে খারাপ লাগতে পারে। কিন্তু এটাই সত্যি যে ড্যাজলারের তুলনায় সিবি ট্রিগার রিভিউতে বাইকটিকে অনেক বেশি আকর্ষনীয় এবং ঝরঝরে লাগে। বাইকটির সামনের দিকে একটি নতুন আকৃতির হেডলাইট দেয়া হয়েছে যা ড্যাজলারের তুলনায় বাইকটিকে বেশ অ্যাগ্রেসিভ একটা লুক এনে দেয়। এছাড়াও ভাইজরের গায়ে দু’টি এয়ার স্কুপ এবং হেডলাইটের উপরে দুই কোনায় থাকা পাইলট ল্যাম্পগুলোর জন্যও বাইকটির সামনের আউটলুকে অনেকটা স্পোর্টি ভাব এসেছে।

এছাড়াও সিবি ট্রিগার রিভিউ অনুযায়ী বাইকটির ট্যাংকের গড়ন বেশ তীক্ষ্ণ ও পুরুষত্বের ছোঁয়া রয়েছে। আকর্ষনীয় ডিজাইনের ট্যাংকের সাথে অনন্য ভাসমান সাইড কাউলগুলো বাইকটিকে বেশ প্রভাবশালী আবেদন এনে দিয়েছে।

হোন্ডা ট্রিগার দামের তুলনায় এর থ্রিডি ডিজাইনের হোন্ডা লোগোটি দর্শকদের চোখে রত্নের মত ঝলমল করে। ২ টোনের প্লাস্টিক দিয়ে সুক্ষ্ম ডিজাইন করা সাইড প্যানেলগুলো বেশ পুরুষালি আমেজ তৈরি করে। পেছনের দিকে সিটের নিচের প্যানেলগুলোও বেশ পুরুষালি এবং বডির রঙের সাথে মিলে গেছে।

অ্যালয় চাকা, পেছনের মনোশক সাসপেনশনের সাথে ডুয়াল ডিস্ক ব্রেকগুলোর সমন্বয় বাইকটিকে বেশ আধুনিকতার ছোঁয়া এনে দিয়েছে। এছাড়াও বাইকটির আউটলুক আরো আধুনিক করে তুলেছে এর ডিজিটাল সরঞ্জামের প্যানেলগুলো।

হোন্ডা ট্রিগার ফিচারের মধ্যে আরও একটি উল্লেখযোগ্য দিক হচ্ছে এর ইউনি-বডি অর্থাৎ মিলিত লম্বা সিট; সিটগুলো বেশ প্রশস্ত এবং কুশনগুলো বেশ আরামদায়ক। এরপর বাইকটির পেছনে রয়েছে একটি দৃষ্টিনন্দন আধুনিক ডিজাইনের এলইডি টেইল-লাইট। কুয়াশা কিংবা দৃষ্টি-বন্ধক পরিবেশেও এর দুই সারি এলইডি লাইনগুলো খুব সহজেই চোখে পড়ে।

হোন্ডা ট্রিগার রিভিউ অনুযায়ী এর এক্সহস্ট মাফলারটি বেশ বড় এবং একটি অনন্য চতুষ্কোণ আকৃতির। সামনের মাড-গার্ড বাদে বাইকের বডির নিচের অংশ পুরোটাই কালো রঙের। ব্ল্যাক ফিনিশের ইঞ্জিনের গায়ে লাল রঙের হোন্ডা ব্র্যান্ডে লোগোটি বেশ আবেদন তৈরি করে। বাংলাদেশে মোটরসাইকেল বাজারে বাইকটির শুধুমাত্র কালো ও লাল এই দুই ভ্যারিয়ান্ট পাওয়া যায়।

Honda CB Trigger রিভিউ – ডিজিটাল কনসোল

Honda CB Trigger রিভিউতে আমরা দেখতে পেয়েছি যে, বাইকটির ইলেকট্রিক্যাল প্যানেল অর্থাৎ কনসোলটি সম্পূর্ণ ডিজিটাল, যা পুরো বাইকে একটি প্রিমিয়াম অনুভব এনে দেয়। কমলা রঙের এলসিডি ডিসপ্লেতে একটি বার স্টাইলের ট্যাকোমিটার, স্পিডোমিটার, ওডোমিটার, দু’টি ট্রিপ মিটার, একটি ফুয়েল গেইজ এবং একটি ঘড়ি দেখা যায়। গিয়ার সম্পর্কিত কোনো ইনডিকেটর এখানে দেয়া হয়নি। বাইকটির যাবতীয় ইনডিকেটর ডিজিটাল কনসোলটির ঠিক উপরেই বসানো হয়েছে।

Honda CB Trigger রিভিউ – সুইচ গিয়ার

সুইচ গিয়ারের ক্ষেত্রে অনেকেই বলেন যে এই বাজেটের বাকি সব হোন্ডা বাইকের মতই সিবি ট্রিগারও গ্রাহকদের হতাশ করবে। হোন্ডা ট্রিগার দামের বিচারে বাইকটিতে কোনো ইঞ্জিন কিল সুইচ দেয়া হয়নি; যা কিনা অত্যন্ত দরকারি একটি ফিচার। এটা ছাড়া বাইকের বাকি সবগুলো সবগুলো সুইচ স্ট্যান্ডার্ড মানের। সুইচগুলোর সাথে রয়েছে একটি হাই-বীম ফ্ল্যাশার এবং সবগুলো সুইচই বেশ প্রিমিয়াম মানের।

Honda CB Trigger রিভিউ – ইলেকট্রিক্যাল সরঞ্জাম

ট্রিগার রিভিউ এর পরের বিষয় সিবি ট্রিগার বাইকটির যাবতীয় ইলেকট্রিক্যাল সরঞ্জাম নিয়ে। এই বাইকে একটি ১২ ভোল্টের ৪এএইচ মেইনটেনেন্স-মুক্ত ব্যাটারি দেয়া হয়েছে এবং এর সাথে দেয়া হয়েছে একটি এসি বিদ্যুৎ জেনারেটর। এই বাইকের ডিজিটাল ইগনিশন সিস্টেমে ডিসি বিদ্যুৎ ব্যবহার করা হয়।

এছাড়াও সিবি ট্রিগার বাইকে রয়েছে একটি উজ্জ্বল ৩৫/৩৫ ওয়াটের মাল্টি রিফলেক্টর ক্লিয়ার লেন্স এসি হেডলাইট, ৫/২১ ওয়াটের এলইডি টেইল ও ব্রেক লাইট এবং একেকটি ১০ ওয়াট করে ২টি ক্লিয়ার লেন্স টার্ন সিগন্যাল লাইট।

Honda CB Trigger রিভিউ – চ্যাসিস ও বাইকের সাইজ  

উন্নত ডিজাইনের ডায়মন্ড টাইপ ফ্রেমের সাহায্যে হোন্ডা তাদের সিবি ট্রিগার বাইকটির ভিত্তি তৈরি করেছে, যা একটি ১৫০ সিসির বাইকের জন্য যথেষ্ট। ট্রিগার রিভিউতে আমরা দেখতে পাই যে, বাইকটির সামগ্রিক দৈর্ঘ্য ২০৪৫ মিমি, প্রস্থ ৭৫৭ মিমি, উচ্চতা ১০৬০ মিমি। সিবি ট্রিগারের সিট হাইট ৭৮০ মিমি, যেখানে উঁচুনিচু রাস্তায় ভালোভাবে চলার জন্য গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্স রাখা হয়েছে ১৭৫ মিমি এবং বাইকটির হুইল-বেইজ হচ্ছে ১৩২৫ মিমি।

ওয়েট ওজন অর্থাৎ টুল-কিট ও ৯০% জ্বালানী সহ বাইকের ওজন হচ্ছে ১৩৫ কেজি। সব মিলিয়ে আমরা দেখতে পাই যে, হোন্ডা ট্রিগার দামের তুলনায় এর সাইজ অন্যান্য প্রতিদ্বন্দ্বীদের মতই। 

Honda CB Trigger রিভিউ – সাসপেনশন

হোন্ডা সিবি ট্রিগার রিভিউতে এর সাসপেনশন বেশ ভালোই মনে হচ্ছে। সামনের দিকে টেলেস্কপিক ফোর্ক এবং পেছনে ৫-ধাপে অ্যাডজাস্টেবল স্প্রিং-লোডেড মনোশক ব্যবহার করা হয়েছে। এই সেগমেন্টের মধ্যে অন্যান্য সব বাইকের তুলনায় হোন্ডা ট্রিগার ফিচার সাসপেনশনের সেট-আপটি স্ট্যান্ডার্ডের চেয়েও বেশ ভালো মনে হয়েছে। এমনকি একজন পিলিয়ন নিয়ে রাইড করা সত্ত্বেও রাস্তার যেকোনো ধরণের ঝাঁকুনি খুব সুন্দরভাবে বাতিল করে দিয়ে একটি মসৃণ আরামদায়ক রাইড নিশ্চিত করতে পারে।

Honda CB Trigger রিভিউ – টায়ার, রীম ও ব্রেক

হোন্ডা ট্রিগার বাইকে তাদের প্রচলিত ৫-স্পোক ১৭ ইঞ্চি অ্যালয় রীম ব্যবহার করা হয়েছে এবং তাদের সিবিএস ভার্সনে দুই চাকাতেই নিসসিন ক্যালিপার সহ ডিস্ক ব্রেক ব্যবহার করেছে। সামনের ডীস্কটি ২৪০ মিমি এবং পেছনেরটি ২২০ মিমি। দু’টি টায়ারই টিউবলেস এবং বেশ ভালো মানের গ্রিপ দিতে পারে।

Honda CB Trigger রিভিউ – কমফোর্ট এবং হ্যান্ডেলিং

কমফোর্টের দিক থেকে হোন্ডা সিবি ট্রিগার বাইকটি সেরা, কিন্তু হ্যান্ডেলিং এর ব্যাপারে এটা শহরের রাস্তায় বেশ ভালোভাবে হ্যান্ডেল করা গেলেও হাইওয়েতে গিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীদের তুলনায় একটু কষ্টই করতে হয়। তুলনামূলকভাবে সিবি ট্রিগারের ওজন বেশ কম এবং পেছনের ১১০ সেগমেন্টের টায়ারগুলো বাইক চালনা ও ট্র্যাফিক জ্যামে বেশ ভালোভাবে সাপোর্ট দিতে পারে। কিন্তু হুইলবেইজ তুলনামূলক খাটো হওয়ায় হাই স্পিডে বাইকটির ভারসাম্য দুর্বল হয়ে পড়ে।

এছাড়াও বাইকটির সিট হাইট তুলনামূলক বেশি; এই ব্যাপারটা উচ্চতায় পিছিয়ে থাকা নবীন রাইডারদের জন্য বেশ বিড়ম্বনার কারণ। বাইকটির সিটিং পজিশন কমিউটার বাইকের মত সোজা হয়ে বসতে সাহায্য করবে, ফলে কোমর ব্যথার কোনো সম্ভাবনাই থাকে না। সিটটি রাইডার ও পিলিওন উভয়ের জন্যই বেশ প্রশস্ত ও ভালোভাবে কুশন করা। গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্স বেশি থাকায় উচুনিচু রাস্তাতেও বাইক নিয়ে ভয় পাবার কোনো কারণ নেই। প্রতিদিনের ডেইলি শহুরে চলাফেরা  জন্য এটা সেরা।, আবার হাইওয়েতে রাইড করার সময় অনেক জিনিস নিয়ে ঝামেলার সম্মুখীন হতে পারে।

Honda CB Trigger Price in Bangladesh Honda CB Trigger Price in Bangladesh

The official price of Honda CB Trigger in Bangladesh is ৳171,000. However, you should check the final price of the bike with the dealer.

সুবিধা

  • শক্তিশালী ইঞ্জিন
  • আরাম করে বসার জন্য বিশাল মিলিত সিট
  • ডাবল ডিস্ক ব্রেক
  • ভালো মাইলেজ

অসুবিধা

  • এক্সিলারেশনের অভাব
  • দুর্বল হেডলাইট
  • বাজারে আর নতুন বাইক নেই

Honda CB Trigger নতুন বৈশিষ্ট্য

  • নতুন ডিজাইনের হেডলাইট
  • চতুষ্কোণ এক্সহস্ট মাফলার
  • ডুয়াল ডিস্ক ব্রেক

এক্সপার্ট অপিনিয়ন

8.5

Out of 10

Honda CB Trigger বাইকটি হোন্ডা কোম্পানির একটি বিশেষ পরিকল্পনায় ডিজাইন করা বাইক। হোন্ডা ট্রিগার ফিচারের মধ্যে স্পোর্টি আউটলুক, অথচ সবসময় ব্যবহারের উপযোগী স্ট্যান্ডার্ড টাইপের হোন্ডা ট্রিগার দামের বিচারে দারুণ একটি বাইক। বাইকটি বাজারজাত করা বন্ধ হয়ে গেলেও বাংলাদেশে ঠিকই এর চাহিদা রয়েছে। আর বাইকটি আরো কিছু আপগ্রেড সহ বাজারে ফিরে আসবে, আমরা সবাই এই ব্যাপারে আশাবাদী। আমাদের দেশে হোন্ডার সবচেয়ে জনপ্রিয় ও সর্বাধিক বিক্রিত মডেলগুলো হচ্ছে হোন্ডা সিবি হর্নেট ১৬০আর, হোন্ডা এক্স ব্লেড, হোন্ডা লিভো এবং হোন্ডা সিবিআর। ১০০-১৬০ সিসির মধ্যে বাংলাদেশে হোন্ডা বাইকের দাম জানতে হলে চোখ রাখুন দেশের সেরা মোটরবাইক মার্কেটপ্লেস Bikroy.com-এ।

Honda CB Trigger Video রিভিউ

Honda CB Trigger-সম্পর্কে জিজ্ঞাসা

What is the mileage of Honda CB Trigger?

Honda CB Trigger মাত্র ১ লিটার তেলে শহরে  40 কিলোমিটার এবং হাই ওয়েতে 45 কিলোমিটার পর্যন্ত যেতে পারে। কিন্তু, রাস্তার কন্ডিশন এবং রাইডারের উপর নির্ভরে করে বাইকের মাইলেজ এর তারতম্য ঘটতে পারে।

How fast is a Honda CB Trigger?

Top speed of Honda CB Trigger is 115 kilometer per liter.

What CC is a Honda CB Trigger?

Honda CB Trigger has 150 cc powerful engine

What is the weight of Honda CB Trigger?

Honda CB Trigger has kerb weight of 135 kg

Is Honda CB Trigger good?

Honda CB Trigger is a very good motorcycle who look for a 150 cc comfortable motorcycle.

Honda CB Trigger স্পেসিফিকেশন

বাইকের নাম

Honda CB Trigger

বাইকের ধরন

Standard

ইঞ্জিনের ধরন

4 Stroke Single Cylinder

ইঞ্জিন ক্ষমতা (সিসি)

149.1

ইঞ্জিন কুলিং

Air Cooled

সর্বোচ্চ শক্তি (হর্স পাওয়ার)

14 Bhp @ 8500 RPM

সর্বোচ্চ টর্ক

12.5 NM @ 6500 RPM

স্টার্ট

Kick & Electric

গিয়ারের সংখ্যা

5

মাইলেজ

40 Kmpl (Approx)

টপ স্পিড

115 Kmph (Approx)

সামনের সাসপেনশন

Telescopic

পেছনের সাসপেনশন

Spring Loaded Hydraulic Type (Monoshock)

সামনের ব্রেক টাইপ

Single Disc

ফ্রন্ট ব্রেক ডায়ামিটার

No Info

পেছনের ব্রেক টাইপ

Disc Brake

পেছনের ব্রেক ডায়ামিটার

No Info

ব্রেকিং সিস্টেম

Double Disc

সামনের টায়ারের সাইজ

80/100-17 M/C 4

পিছনের টায়ারের সাইজ

110/80-17 M/C 5

টায়ারের ধরন

Tubeless

সামগ্রিক দৈর্ঘ্য

2045 mm

উচ্চতা

1060 mm

ওজন

135 kg

হুইলবেস

1325 mm

সামগ্রিক প্রস্থ

757 mm

গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্স

175 mm

জ্বালানী ট্যাঙ্কের ধারণ ক্ষমতা

12 Liters

আসন উচ্চতা

780 mm

হেড লাইট

35W/35W Ha

ইন্ডিকেটরস

Halogen

পেছনের লাইট

LED

স্পিডোমিটার

digital

আরপিএম মিটার

Digital

ওডোমিটার

Digital

আসনের ধরন

Single-Seat

ইঞ্জিন কিল সুইচ

no

শরীরের রঙ

No Info

পরিবেশক/বিক্রেতা

No Info

Buy New Honda CB TriggerBikroy

No bikes found. Browse used section or Explore other models.

Buy Used Honda CB Hornet 160RBikroy
Honda Trigger bike 2018 for Sale

Honda Trigger bike 2018

17,495 km
MEMBER
Tk 120,000
7 hours ago
Honda Trigger 2016 for Sale

Honda Trigger 2016

47,000 km
MEMBER
Tk 110,000
1 day ago
Honda Trigger . 2019 for Sale

Honda Trigger . 2019

14,000 km
MEMBER
Tk 123,000
1 day ago
Honda Trigger . 2017 for Sale

Honda Trigger . 2017

45,000 km
MEMBER
Tk 115,000
1 day ago
Honda Trigger . 2018 for Sale

Honda Trigger . 2018

36,000 km
MEMBER
Tk 122,000
2 days ago
+ Post an ad on Bikroy