TVS Apache RTR 160 4V Vs Hero Thriller 160R

TVS Apache RTR 160 4V Vs Hero Thriller 160R

Bike enthusiasts always want to stay updated regarding the newest models of motorcycles. If you are a bike lover especially sports bikes, then you will surely be interested in TVS Apache RTR 160 4V Vs Hero Thriller 160R.

TVS Apache RTR 4V and the Hero Thriller 160R are manufactured in India. However, they differ in terms of engine, design, and other parts.

Therefore, this review will compare and contrast the New TVS Apache RTR 160 4V VS Hero Thriller 160R 2022 in detail.

So, if you get excited at the mention of motorcycles and are interested in them, then this review is for you, so buckle up and read the article.

TVS Apache RTR 160 4V Vs Hero Thriller 160R

TVS Apache RTR 4V engine’s build quality is excellent and has oil cooling technology, making it highly practical for long driving.

However, Hero Thriller 160R is better for beginners because it’s easier to control and ride.

Considering the bike’s height, weight, and turning radius, its performance is excellent. Moreover, in terms of brakes and suspension, Hero Thriller also outperforms TVS Apache RTR 4V.

In terms of engine, Hero Thriller 160R and TVS Apache RTR 4V are both single cylinder 4 strokes. However, the TVS engine uses 4 valves (oil cooled) technology. Which is better than Hero’s 2 valves (2 valves) air-cooled engine.

Since oil-cooled engine helps to keep the temperature of the bike normal while riding the bike for a long time in our country.

Hero Thriller fi abs weigh (weight) 139 kg, whereas Apache Four V weighs (weight) 143 kg. Therefore, riding the Hero Thriller will certainly be easier for a rider.

Turning radius on the other hand is much more of TVS 4V compared to the hero thriller.

Braking and Controlling: TVS Apache RTR 160 4V Vs Hero Thriller 160R

When it comes to braking and controlling the bike, the issue that needs to be discussed at the beginning is tire measurements. These two bikes are almost the same in terms of tires.

However, there is a considerable difference in the case of brakes. On the front, the TVS 4V uses a 260mm petal disc brake, while the hero thriller uses a 26mm petal disc brake with a single-channel ABS system.

Although the tires are the same for having a single-channel ABS, the Hero Thriller 160R outperforms the 4V.

Hero Thriller features an 8-step adjustable mono-shock in the rear tires, whilst 4V has a mono-shock suspension. Moreover, the bike has a 35 kmpl company claimed mileage.

The two motorcycles’ headlights and taillights are made of LEDs. However, in terms of performance, the headlight of TVS Apache is better than Hero Thriller.

Furthermore, the price of these two models is BDT 200,000. If the price seems high, you can take a bike loan. So, the TVS Apache RTR 160 4v price is the same as the Hero Thriller.

In the end, both bikes in our comparison of the 160r vs TVS Apache have some excellent qualities and limitations.

Comparing the engine, looks, and build quality of these two bikes, the TVS Apache RTR 4V is ahead, but considering the braking, controlling, and pillion seating, the Hero Thriller 160R is better.

You can check out the bikes yourself from the bike showroom to get a better idea. Therefore, we suggest you make a decision based on which is more important to you.

 

TVS Apache RTR 160 4V & Hero Thriller 160R

TVS Apache RTR 160 4V Vs Hero Thriller 160R এই দুইটি বাইকই 2020 সালের শেষের দিকে বাংলাদেশে লঞ্চ হয়।

আগের TVS এর মডেলটিকে নতুন করে ডিজাইন ও আপডেট করে থ্রিলার 160R (Hero Thriller 160R) এই নামে তাদের গ্রাহকদের কাছে নিয়ে আসে কিন্তু হিরো এর এই বাইকটি সম্পূর্ণ নতুন।

আপনাদের সুবিধার্থে আমাদের আজকের এই আর্টিকেলে থাকছে Hero Thriller 160R এবং TVS Apache RTR 4V এর ভালো খারাপ দিকগুলো নিয়ে একটি বিস্তারিত আলোচনা ।

 

রাইডিং ডাইনামিক্স of TVS Apache RTR 160 4V Vs Hero Thriller 160R

Hero Thriller  এবং Apache 4v এই দুইটি বাইকেরই ব্র্যান্ড অরিজিন ইন্ডিয়া হলেও এদের ইঞ্জিন, ডিজাইন এবং অন্যান্য পার্টসের দিক থেকে বিভিন্ন পার্থক্য দেখা যায়।

আর বাইকের পার্টসের ভিন্নতা থাকলে তাদের পার্ফরমেন্সেও পার্থক্য থাকবে এটাই স্বাভাবিক। তাই বাইক কেনার আগে অবশ্যই দুই বাইক সম্পর্কে সঠিক ইনফর্মেশনগুলি জেনে নিন যেন আপনি আপনার প্রয়োজন অনুসারে সঠিক বাইকটি কিনতে পারেন।

TVS Apache RTR 4V এই বাইকটির ইঞ্জিনের বিল্ড কোয়ালিটি বেশ ভালো আবার এতে অয়েল কুলিং টেকনোলোজি থাকায় লং টাইম চালানোর ক্ষেত্রেও এটি বিশেষ উপযোগী।

কিন্তু যদি আবার সহজে চালানোর কথা বলা হয় তাহলে সেক্ষেত্রে Hero Thriller 160R ভালো হবে। কারণ, হাইট, ওয়েট এবং টার্নিং রেডিয়াসের দিক থেকে হিরো এর পার্ফরমেন্স ভালো। ব্রেকিং ও সাসপেনশনের দিক থেকেও হিরো থ্রিলারই বেশি এগিয়ে রয়েছে।

TVS Apache RTR 160 4V Vs Hero Thriller 160R এর ইঞ্জিন

ইঞ্জিনের দিক থেকে বিবেচনা করলে Hero Thriller 160R এবং TVS Apache RTR 4V এই দুইটি বাইকেই রয়েছে সিঙ্গেল সিলিন্ডার(single cylinder ohc) ৪ স্ট্রোক(4 stroke)।

তবে TVS এর ইঞ্জিনে ব্যবহার করেছে ৪ভাল্ভস(4 valves) অয়েল কুল্ড(oil cooled) টেকনোলোজি। যা Hero এর ২ভাল্ভস(2 valves) এয়ার কুল্ড (air cooled) ইঞ্জিনের তুলোনায় ভালো হবে।

কারণ, অয়েল কুল্ড ইঞ্জিন গ্রীষ্ম প্রধান আমাদের দেশে লং টাইমের জন্য বাইক চালালে বাইকের টেম্পারেচার স্বাভাবিক রাখতে সাহায্য করে।

মাইলেজের ও টপ স্পিডের দিক থেকে Hero Thriller এগিয়ে রয়েছে। Hero Thriller 160R এর গড় মাইলেজ ৪৫ কিমিঃ/ লিটার। TVS 4V এর গড় মাইলেজ ৩০কিমিঃ/ লিটার এবং হিরো এর টপ স্পিড ১২৫কিমিঃ অপরদিকে 4V এর ১১৩কিমিঃ ।

যদিও Hero Thriller 160R এর মাক্সিমাম পাওয়ার 15 BHP পাওয়ার @ 8500 RPM, টর্ক 14 NM @ 6500 RPM এবং এতে ব্যবহার করা হয়েছে FI

ইঞ্জিন যা TVS Apache এর তুলনায় ভালো কিন্তু বাংলাদেশের ফুয়েল কন্ডিশনের কথা চিন্তা করলে অয়েল কুল্ড টেকনোলোজির কারণে TVS Apache বেটার হবে।

রাইডার কম্ফোর্টেবলিটি

রাইডার কম্ফোর্টেবলিটি বলতে একটি বাইক কতটা কম্ফোর্টেবলি চালানো এবং হ্যান্ডেল করা যায় তা বোঝায়।

হিরো থ্রিলারের ওজন (ওয়েট) ১৩৯কেজি আর অ্যাপাচি ফোর ভি এর ওজন (ওয়েট) ১৪৩কেজি। তাই স্বাভাবিকভাবেই রাইডারের জন্য হিরো রাইড করা বেশি ইজি হবে।

অপরদিকে টার্নিং রেডিয়াসও hero thriller এর তুলনায় TVS 4V এর অনেক বেশি। যদি হাইটের কথা চিন্তা করা হয় সেক্ষেত্রেও হিরো বেটার কারণ, হিরো থ্রিলারের হাইট কম হওয়ায় সব হাইটের রাইডারই ইজিলি কন্ট্রোল করতে পারবে।

তবে আপনি যদি রাইডিং সিটের সাথে পলিয়েন সিটের কম্ফোর্টেবলিটি চান সেক্ষেত্রে 4V বেশি ভালো হবে।

ব্রেকিং, টায়ার

বাইকের ব্রেকিং ও কন্ট্রোলিং এর কথা বললে শুরুতেই যে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা দরকার তা হলো টায়ার মেজারমেন্টস। টায়ারের দিক এই দুইটি বাইক অলমোস্ট একি।

কারণ, ফ্রন্ট টায়ার ও রেয়ার টায়ার এবং এদের পার্ফরমেন্স উভয় বাইকেরই কাছাকাছি বলা চলে। ফ্রন্ট টায়ারে দুটি বাইকে রয়েছে ১৩০ সেকশনের টায়ার এবং রেয়ারে ব্যবহার করা হয়েছে রেডিয়াল টায়ার।

তবে ব্রেকের ক্ষেত্রে বেশ ভালোই পার্থক্য রয়েছে। ফ্রন্টে TVS 4V ব্যবহার করেছে একটি ২৭০মিমি এর পেটাল ডিস্ক ব্রেক অপরদিকে hero thriller ব্যবহার করেছে একটি ২৭৬মিমি এর পেটাল ডিস্ক ব্রেক যার সাথে থাকছে একটি সিঙ্গেল চ্যানেল ABS সিস্টেম।

সিঙ্গেল চ্যানেল (single channel) ABS সিস্টেমের থাকার জন্য টায়ার একই রকমের হলেও Hero Thriller 160R, apache rtr 160 4v এর থেকে অনেকটায় এগিয়ে রয়েছে।

রেয়ার সেকশনের ব্রেকিং এর ক্ষেত্রে দুই বাইকেই ব্যবহার করা হয়েছে ড্রাম ব্রেক ও ডিস্ক ব্রেক।

সাসপেনশন

ফ্রন্টে চ 160R এবং TVS Apache RTR 4V উভয় বাইকে ব্যবহার করা হয়েছে টেলিস্কোপিক ফর্ক সাসপেনশন।

কিন্তু, রেয়ারে Hero Thriller-এ ব্যবহার করা হয়েছে ৭ স্টেপ অ্যাডজাস্টেবল মোনোশক যেখানে 4V এ ব্যবহার করা হয়েছে মোনোশক সাসপেনশন তাই সাসপেনশনের দিক থেকে অবশ্যই হিরো, অ্যাপাচে এর তুলনায় এগিয়ে আছে।

অন্যান্য ফিচার্স

দুটি বাইকের হেড লাইট এবং টেললাইটে ব্যবহার করা হয়েছে LED। তবে পার্ফরমেন্সের দিক থেকে TVS Apache এর হেডলাইট Hero Thriller এর চেয়ে বেটার।

বাইক স্টারটিং সিস্টেমের ক্ষেত্রেও দুটি বাইক সেইম। কারণ, Hero Thriller 160R এবং TVS Apache RTR 4V উভয় বাইকে কিক স্টার্ট ও সেলফ স্টার্টের সুবিধা রয়েছে।

এবার আসা যাক এই দুই বাইকের মিটার সেকশনে। Apache RTR 4V এর নতুন স্মার্ট এক্স-কানেক্ট যুক্ত মিটারটি এই বাইকটিকে নেক্সট লেভেলে নিয়ে গিয়েছে।

যদিও দিনের বেলায় এই মিটারটি দেখতে কিছুটা কষ্ট হয় তবুও এর উপডেটেড নটিফিকেশন ও এলার্ট সিস্টেমের কারণে এই বাইকের মিটারের সাথে হিরো এর মিটারের কনো তুলনাই সম্ভব নয়।

এছাড়া গিয়ারবক্স, ফুয়েল ট্যাঙ্ক ক্যাপাসিটি এবং অন্যান্য পার্টস অলমোস্ট দুই বাইকের একই।

TVS Apache RTR 160 4V Vs Hero Thriller 160R এর মূল্য 

প্রাইজের ক্ষেত্রে এই দুই বাইকের মূল্যই ২০০,০০০টাকা। তাই আপনার বাজেট যদি ২০০,০০০ টাকা হয় তাহলে আপনি এই দুই বাইকের মধ্যে যেকোনো একটি নিতে পারেন

পরিশেষে 

Hero Thriller 160R এবং TVS Apache RTR 4V এই দুই বাইকের ইঞ্জিন, লুক্স এবং বিল্ড কোয়ালিটি তুলনা করলে দেখা যায় TVS Apache RTR 4V এগিয়ে আছে কিন্তু ব্রেকিং,

কন্ট্রোলিং আর পিলিয়েন সিটিং এর কথা বিবেচনা করলে দেখা যাবে Hero Thriller 160R এগিয়ে রয়েছে। সুতরাং, আপনাদের কার কাছে কোন বিষয়টি বেশি জরুরী তার উপরে ভিত্তি করে অবশ্যই সিদ্ধান্ত নিবেন।

FAQs

১. TVS apache rtr 160 4v price in bangladesh?

উঃ বর্তমানে বাজারে TVS Apache RTR 160 4Vমূল্য ২১০,০০০ টাকা।

২. Hero thriller এর মাইলেজ কত?

উঃ Hero Thriller 160R বাইকের গড় মাইলেজ প্রায় ৪৫কিমিঃ/ লিটার (45 kmpl)।

৩. কম বাজেটে ভালো মাইলেজ এবং পাওয়ারের বাইক কিনতে চাইলে কোনটি বেটার হবে?

উঃ মাইলেজের দিক থেকে hero এবং apache দুটোই ভালো তবে যদি কম বাজেটে বেস্ট মাইলেজ চান তবে tvs apache rtr 160 বেটার হবে।

৪. অনলাইনে Hero thriller 160r কিভাবে অর্ডার করব?

উঃ বাইক কিনতে বা বাইক সম্পর্কে যেকোনো তথ্য পেতে আমাদের পেইজ bikroy.com এ ভিজিট করুন।

5. ব্রেকিং ও সেইফ রাইডিং এর দিক থেকে কোন বাইকটি  বেটার হবে?

উঃ আপনি যদি একটি ভালো ব্রেকিং সিস্টেম সহ বাইক কিনতে চান তবে হিরো থ্রিলার বেটার হবে

Similar Advices